1. fauzursabit135@gmail.com : S Sabit : S Sabit
  2. sizulislam7@gmail.com : sizul islam : sizul islam
  3. mridha841@gmail.com : Sohel Khan : Sohel Khan
  4. multicare.net@gmail.com : অদেখা বিশ্ব :
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯:১৭ অপরাহ্ন

সমগ্র উত্তরবঙ্গে কৃষক সমিতির কৃষকবন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত। 

বগুড়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৭ জুন, ২০২৩
পঞ্চগড় থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত কৃষক বন্ধন কর্মসূচীর বগুড়ার সাতমাথার সমাবেশে বক্তব্য রাখেন লাকী আক্তার। ছবি-নাদিম
আজ ১৭ জুন ২০২৩ শনিবার বাংলাদেশ কৃষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির ঘোষিত সকাল ১১ টা থেকে ১২ পর্যন্ত পঞ্চগড় থেকে বগঙ্গবন্ধু সেতু চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত মহাসড়কে কৃষক সমিতির কৃষক বন্ধন কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি বগুড়া জেলার উদ্যোগে বগুড়া জেলার সাতমাথায় কৃষকবন্ধন কর্মসূচি  অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও বগুড়া জেলার সাতমাথায়, বনানী, শেরপুর ও মোকামতলা স্পটে কৃষকবন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
সাতমাথার কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি বগুড়া জেলার সহ সভাপতি এড. লুতফুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং বগুড়া জেলার সাধারণ সম্পাদক হাসান আলী শেখের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কৃষকনেতা লাকী আক্তার। কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির বগুড়া জেলার সভাপতি জিন্নাতুল ইসলাম, শ্রমিক নেতা ফজলুর রহমান,  কৃষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক নাদিম মাহমুদ,  কৃষকনেতা সোহানুর রহমান সোহান, যুবনেতা অখীল পাল, এবং ছাত্র ইউনিয়ন বগুড়া জেলার সভাপতি ছাব্বির আহমেদ রাজ।
মোকামতলার কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন কৃষক সমিতির সহ সভাপতি হুমায়ুন কবির এবং সঞ্চালনা করেন ইউনুসার রহমান।  বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সিপিবির বগুড়া জেলার সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ফরিদ এবং সিপিবি নেতা মহসিন আলী তাহা।
শেরপুরের কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক সমিতি বগুড়া জেলার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তোষ কুমার পাল এবং সঞ্চালনা করেন কৃষক সমিতির সহ সভাপতি ফিরোজ আখতার পলাশ। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন জাবেদ আলী,  ক্ষেতমজুর জেলা সভাপতি সাহা সন্তোষ।
বনানীর কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন কৃষক সমিতির সহ সভাপতি শাহনিয়াজ কবির খান পাপ্পু এবং সঞ্চালনা করেন শুভ সংকর গুহ রায়। বক্তব্য রাখেন মহসিন রেজা,  শফিকুল ইসলাম,  এনামুল হক মুকুল, লিয়াকত আলী কাক্কু, সোহাগ মোল্লা ও বায়েজিদ রহমান।
বগুড়ার সাতমাথায় কৃষক বন্ধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে লাকী আক্তার বলেন,
‘বরেন্দ্র অঞ্চলের সেচের পানি এখন ক্ষমতাসীন অপারেটরদের কবজায়। এই মাফিয়াদের হাতে এখন বরেন্দ্রর প্রায় চার লাখ কৃষক জিম্মি। এ অঞ্চলের কৃষকের সেচের পানি নিয়ে অপারেটররা রীতিমতো বাণিজ্য করছেন। এসব অপারেটরের বেশির ভাগই ক্ষমতাসীন দলের নেতা–কর্মী, সমর্থক। ভূগর্ভস্থ পানির মালিকানা দেশের জনগনের। বরেন্দ্র অঞ্চলে এই ভূগর্ভস্থ পানির নিয়ন্ত্রন ক্ষমতাসীন সিন্ডিকেটের দখলে রাখা জনগণের সাথে বৈষম্য এবং গরিব কৃষকদের নিঃস্ব করার প্রক্রিয়া। কৃষক এবং কৃষিকে বাঁচাতে হলে বরেন্দ্র অঞ্চলে  সেচের পানির সংকট নিরসন করতে হবে। অন্যায়কারীদের শাস্তি দিতে হবে।’
বক্তারা আরও বলেন,  ‘সারসহ সকল প্রকার কৃষি উৎপাদন উপকরনের দাম কমাও।ন্যূনতম ১৫০০ টাকা মণ দরে প্রকৃত কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় কর।বরেন্দ্র অঞ্চলসহ সারাদেশে কৃষি সেঁচে অনিয়ম-হয়রানি-দুর্নীতি বন্ধ কর, চাহিদা ও সময়মতো ন্যায্য দামে সেঁচের পানি বিতরণ নিশ্চিত কর।প্রকৃত কৃষককে কৃষি কার্ড দাও, শস্য বীমা ও পল্লী রেশন চালু কর। কৃষি ও কৃষক বাচাঁতে এইসকল দাবিতে আমাদের তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির বগুড়া জেলার সভাপতি রফিকুল ইসলাম জিন্নাহ বলেন, ‘বাংলাদেশের রাজনীতিতে কৃষক বরাবরই উপেক্ষিত’।
কৃষকবন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা উপরে উল্লেখিত দাবিতে এবং আন্দোলন গড়ে তোলার প্রত্যয় জানান।
বগুড়া ছাড়াও উত্তরবঙ্গের ১৬ টি জেলার মহাসড়কের প্রধান প্রধান স্পটে ব্যাপক সংখ্যক কৃষকের অংশগ্রহণে এই কর্মসূচি সফল হয়।পঞ্চগড় ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা থেকে একযোগে শুরু হয়ে যমুনা সেতুর সন্নিকটে সিরাজগঞ্জ জেলার কড্ডার মোড় পর্যন্ত কৃষকরা তাদের দাবি আদায়ের জন্য অবস্থান করেছেন।
উল্লেখ্য কৃষক বন্ধন কর্মসূচির প্রধান স্পটগুলো হল, পঞ্চগড় জেলার সদর, বোদা ; ঠাকুরগাঁও বাস স্ট্যান্ড, খোঁচাবাড়ী ; দিনাজপুরের বীরগঞ্জ, দশমাইল, রাণীরবন্দর ; নীলফামারীর সৈয়দপুর ; রংপুরের পাগলাপীর, মেডিকেল, বাস স্ট্যান্ড, মডার্ন মোড়, মিঠাপুকুর, জায়গীর, পীরগঞ্জ, ধাপেরহাট ; গাইবান্ধার পলাশবাড়ি, গোবিন্দগঞ্জ ; বগুড়ার  মোকামতলা, মাটিডালি, সাতরাস্তা,  বনানী, শেরপুর ;  লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম জেলা সন্নিকটের মহাসড়কের স্পটে অংশগ্রহণ করবেন ; সিরাজগঞ্জের ভূরকা, রায়গঞ্জ, কড্ডার মোড় ( যমুনা সেতুর সন্নিকটে) ; চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর ; রাজশাহীর গোদাগাড়ী, সদর,  পুঠিয়া ; নাটোরের বনপাড়া, গুরুদাসপুর ; পাবনার দাসুরিয়া ; নওগাঁ ও জয়পুরহাট জেলা সন্নিকটের মহাসড়কের স্পটে অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

Theme Customized BY LatestNews