1. fauzursabit135@gmail.com : S Sabit : S Sabit
  2. sizulislam7@gmail.com : sizul islam : sizul islam
  3. mridha841@gmail.com : Sohel Khan : Sohel Khan
  4. multicare.net@gmail.com : অদেখা বিশ্ব :
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১০:৩১ অপরাহ্ন

ফিলিস্তিনি, আফগানি ও কাশ্মিরিদের আবেগ!

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২৩
চট্টগ্রামে মো. হাসান (৬১) নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন— পুত্র, কন্যা, স্ত্রী ও নাতিদের হাতে৷ অপরাধ— সম্পত্তি লিখে দিতে রাজি না হওয়া৷ তার শরীর খণ্ড খণ্ড করে ফেলে দেয় বিভিন্ন স্থানে৷ ধরা পড়ে পুত্রবধু আনারকলি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি দোষী, আমি কি আপনাদের একবারও বলেছি আমি নির্দোষ। তখন আমার আবেগ কাজ করেছে, বিবেক কাজ করেনি। তখন যদি আমার বিবেক কাজ করতো, তাহলে এত বড় পাপে নিজে জড়িয়ে পড়তাম না। কারও কথা না ভাবলেও একবার আমার সন্তানের কথা ভাবতাম। আমি আমার সন্তানের কথা পর্যন্ত ভাবিনি।’ সুশিক্ষা না আসলে আর ধর্মান্ধতা-দলান্ধতা থাকলে আবেগটাই কাজ করে, বিবেক জাগ্রত হয় না৷
কেন নির্বাচনের আগেই ফিলিস্তিনি ও কাশ্মিরিদের বিপদ আসে৷ ২০১৯ সালে ভারতের জাতীয় নির্বাচনের আগে নিরাপত্তা কর্মীদের বহনকারী একটি গাড়িবহর জম্মু ও কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলার শিকার হয়। এই হামলার ফলে ৪০ জন কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ মারা যায়। পাকিস্তান ভিত্তিক ইসলামী জঙ্গি সংগঠন জাইশ-ই-মোহাম্মদ এই হামলার দায় স্বীকার করে৷ সেই হামলার ফলে বিজেপি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়৷ প্রশ্ন থেকেই যায়, জইশ মোহাম্মদ কেন অমন সময়টা বেছে নিল? কেবলই কি আবেগে? ভারতে আবারো নির্বাচন আসছে আবারো কাশ্মিরে ভারত পাকিস্তানের সংঘাতের খবরও আসছে৷ আবারো হুবহু একই ঘটনা ঘটবে না৷ তবে এমন কিছু ঘটবে যা বিজেপির জন্য সফলতা বয়ে আনতে পারে৷ ভারতের বিজেপি সরকারের হাতে মুসলিমরা নিপীড়িত হচ্ছে৷ সেই বিজেপিকে কেন এমন সুফল এনে দিল জঙ্গী জইশ মোহাম্মদ? কেবলই কি বিবেচনাবোধের অভাব নয়?
দখলদার ইসরাইলিদের হাতে হাজার রকমের নিপীড়নের শিকার ফিলিস্তিনিরা৷ ভূখণ্ড হারাতে হারাতে তারা এখন মূলত ইসরাইলের খবরদারির মধ্যেই বাস করছেন৷ ইসরাইলের শক্তির কাছে তারা এখন খুবই নগণ্য শক্তির কুক্ষিগত প্রতিপক্ষ৷ ওদিকে শাসক নেতানিয়াহু ক্ষমতায় থাকলেও জনপ্রিয়তা হারিয়ে ধুঁকছিল৷ কয়েকবার তার ঐক্য সরকার পতনের দিকেই গিয়েছিল৷ বর্তমান জরিপে কট্টরপন্থী নেতানিয়াহুর আগামী নির্বাচনে পরাজয়ের নিশ্চিত বার্তাই দিচ্ছিল৷ যদি নেতানিয়াহু হামাসের হামলার নির্মম প্রতিশোধ নিতে পারে তবেই তার ক্ষমতায় থাকা ও জনপ্রিয়তা ফিরে পাওয়া সম্ভব হবে৷ সে লক্ষ্যেই নিরীহ ফিলিস্তিনিদের উপর ভয়ানক বর্বরতা চালাচ্ছে ইসরাইল৷ নেতানিয়াহুর সামনে সুযোগ এসেছে৷ বিপন্ন ফিলিস্তিনিদের পক্ষে পাশ্চাত্যের কাউকে দেখা যাচ্ছে না৷ অথচ ইহুদিরা সুদীর্ঘকাল এই পাশ্চাত্যের খ্রিস্টানদের হাতেই নির্যাতিত হয়েছে৷ কিভাবে অবস্থাটা বদলে গেল?
অবশ্যই সুশিক্ষা৷ ইহুদিরা সংখ্যায় পৃথিবীর জনসংখ্যার মাত্র ০.২০% এর কম কিন্তু নোবেল পাচ্ছেন ২০% এর বেশি— মানে দুইশ গুণ বেশি! শিক্ষা তাদের আবেগটা প্রতিস্থাপিত করেছে যুক্তিতে৷ এটাও নিজেদের স্বার্থে একরকম বিবেচনা বোধ বা বিবেক! বিবেকটা নিজের কল্যাণে কাজে লাগাচ্ছে৷ আফগানদের আবেগটা একেবারেই ধর্ম কেন্দ্রিক! ধর্মান্ধ ও দলান্ধ আবেগ আনারকলির আবেগের চেয়েও ভয়ানক হয়ে উঠে৷ এমন আবেগে ক্ষতিটা হয় দেশের ও জাতির৷ এমন ধর্মীয় আবেগে আফগান আর দলীয় আবেগে বাংলাদেশিরা নিজেদের নিজেরাই ক্ষতি করছে৷ সুশিক্ষা অর্জন করে ইহুদিরা আগে খ্রিস্টানদেরই আস্থাভাজন হয়েছে৷ তারা বুঝেছে ধর্ম নয় জ্ঞানই তাদের আবেগকে দমিত করে যৌক্তিক মানুষে পরিণত করতে পারবে৷ ফলটা হল, ইসরাইলের ৬২% ইহুদিই ঈশ্বরে বিশ্বাস করে না৷ সারা পৃথিবীর হিসাব করলে এমন হার আরো বাড়বে৷ শিক্ষা তাদের ধর্মান্ধতা থেকে মুক্তি দিয়েছে৷ কিন্তু রাজনৈতিক কারণে ক্ষমতায় থাকতে তারা চূড়ান্ত অমানবিক আচরণ করছে ফিলিস্তিনিদের প্রতি৷
ফিলিস্তিন, আফগানিস্তান, কাশ্মির বা বাংলাদেশের সংকটটা আবেগের৷ এরা সুশিক্ষায় নিজেদের উন্নত করতে পারেনি৷ নিজেদের স্বার্থে তাদের বিবেকটা জাগ্রত হয় না৷ ধর্মান্ধ ও দলান্ধ মানুষের বিবেক কাজ করে না৷ তারা কি করছে তা বুঝে উঠতে পারে না৷ যখন বুঝতে পারে তখন ক্ষতিটা হয়ে যায় কিন্তু বুঝতে পারাটা দীর্ঘস্থায়ী হয় না৷ আবারো চলে আসে কোন আবেগ৷ তারা সম্পদ হারায়, জীবন হারায়, গণতন্ত্র-ভোট হারায়, শেষে দেশও হারায়৷

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

Theme Customized BY LatestNews